1. sm.khakon@gmail.com : bkantho :
হবিগঞ্জ জেলার প্রাথমিক শিক্ষা - বাংলা কণ্ঠ নিউজ
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:২০ পূর্বাহ্ন

হবিগঞ্জ জেলার প্রাথমিক শিক্ষা

আরিফুল হাসান,ইন্সট্রাক্টর(সাধারণ),পিটিআই, সিলেট
  • শুক্রবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ২১৫ বার পড়া হয়েছে
টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (SDGs) এবং মানসম্মত শিক্ষা 

শিক্ষা সংবিধান স্বীকৃত একটি মৌলিক অধিকার। রাষ্ট্রীয়ভাবে এ অধিকার নিশ্চিত করার জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানে অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক শিক্ষা শিরোনামে একটি অনুচ্ছেদ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।  অনুচ্ছেদটি নিম্নরূপ:

১৭। রাষ্ট্র

(ক) একই পদ্ধতির গণমুখী ও সার্বজনীন শিক্ষা ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার জন্য এবং আইনের দ্বারা নির্ধারিত স্তর পর্যন্ত সকল বালক-বালিকাকে অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক শিক্ষাদানের জন্য,

(খ) সমাজের প্রয়োজনের সহিত শিক্ষাকে সঙ্গতিপূর্ণ করিবার জন্য এবং সেই প্রয়োজন সিদ্ধ করিবার উদ্দেশ্যে যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও সদিচ্ছাপ্রণোদিত নাগরিক সৃষ্টির জন্য,

(গ) আইনের দ্বারা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিরক্ষতা দূর করিবার জন্য কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করিবেন।

উন্নত সমৃদ্ধ জাতি গঠনের পূর্বশর্ত হলো দক্ষ জনশক্তি। আর দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজন শিক্ষা। শিক্ষার বিভিন্ন স্তরের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্তর হলো প্রাথমিক শিক্ষা। জাতীয় জীবনে প্রাথমিক শিক্ষার গুরুত্ব অত্যাধিক। দেশের সকল মানুষের শিক্ষার আয়োজন এবং জনসংখ্যাকে দক্ষ করে তোলার ভিত্তিমূল হলো প্রাথমিক শিক্ষা।

বিষয়টি অনুধাবন করতে পেরে স্বাধীনতোত্তর বাংলাদেশে প্রাথমিক শিক্ষাক্ষেত্রে পুনর্জাগরণ সৃষ্টির লক্ষ্যে বাঙ্গালী  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রাথমিক শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে ১৯৭৩ সালের ১ জুলাই ৩৬ হাজার ১৬৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ১ লাখ ৫৬ হাজার ৭২৪ জন শিক্ষককে সরকারি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষায় গতির সঞ্চার করেন। তাঁর পদাঙ্ক অনুসরণ করে ২০১৩ সালে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৬ হাজার ১৯৩ টি রেজিস্টার বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ১লাখ ৫ হাজার ৬১৬ জন শিক্ষকের চাকরী জাতীয়করণ করেন। বর্তমানে দেশে ৬৫ হাজার ৫৬৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।

 হবিগঞ্জ জেলার প্রাথমিক শিক্ষা:   

সিলেটের প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত হবিগঞ্জ দেশের গুরুত্বপূর্ণ জেলাগুলোর অন্যতম। ভৌগলিক অবস্থান,প্রাকৃতিক সম্পদ ও পর্যটন স্থান সমৃদ্ধ জেলাটির ইতিহাস-ঐতিহ্যকে বিবেচনায় রেখে  সম্প্রতি জেলাটির ব্র্যান্ডিং স্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে- পাহাড়,টিলা,হাওর বন হবিগঞ্জের পর্যটন।

জেলার প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়নের জন্য প্রত্যেক জেলারই একটি সরকারি কাঠামো রয়েছে।

কাঠামোটির দুইটি অংশ রয়েছে:

১) প্রাশাসনিক বিষয়াবলি এবং ২) একাডেমিক (প্রশিক্ষণ) বিষয়াবলি।

১। হবিগঞ্জ জেলার প্রাথমিক শিক্ষার প্রশাসনিক কার্যক্রম বাস্তবায়নে নিয়োজিত রয়েছে একটি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও অধীনস্ত ৯টি উপজেলা শিক্ষা অফিস।

জেলা কার্যালয়টির নাম ও ঠিকানা: জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস,হবিগঞ্জ।

অফিসটি জেলা শহরের কলেজ রোডের ঘাটিয়া বাজার এবং মহিলা কলেজের মাঝখানে (পিটিআই সংলগ্ন) অবস্থিত।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার(ডিপিইও) পদধারী একজন ৬ষ্ঠ গ্রেডের কর্মকর্তা কার্যালয়টির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে থাকেন। তাছাড়া অত্র কার্যালয়ে ৯ম গ্রেডের ২ জন সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা(এডিপিইও)র পদ রয়েছে। বর্তমানে কার্যালয়টিতে একজন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার(ডিপিইও) এবং ১ জন সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা(এডিপিইও) কর্মরত আছেন।

 

২। জেলার প্রাথমিক শিক্ষার একাডেমিক(প্রশিক্ষণ) কার্যক্রম বাস্তবায়নে নিয়োজিত রয়েছে একটি প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট(পিটিআই) এবং অধীনস্ত ৯টি উপজেলা রিসোর্স সেন্টার(ইউআরসি)।

১৯৫২ সালে প্রতিষ্ঠিত জেলার ঐতিহ্যবাহী প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানটির নাম প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট(পিটিআই),হবিগঞ্জ। প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানটি জেলা শহরের কলেজ রোডের ঘাটিয়া বাজার ও মহিলা কলেজের মাঝখানে অবস্থিত।

সুপারিনটেনডেন্ট পদধারী একজন ৬ষ্ঠ গ্রেডের কর্মকর্তা কার্যালয়টির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে থাকেন। তাছাড়া অত্র কার্যালয়ে ৯ম গ্রেডের ২ টি সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট এবং  ১৭ জন ইন্সট্রাক্টরের পদ রয়েছে। বর্তমানে কার্যালয়টিতে একজন সুপারিনটেনডেন্ট, ১ জন সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট এবং ৫ জন ইন্সট্রাক্টর কর্মরত আছেন।

 

প্রাথমিক শিক্ষার মূল কাজটি সম্পাদিত হয়ে থাকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ তৃণমূল পর্যায়ে এ কাজটি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন  করে থাকেন। হবিগঞ্জ জেলার প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়নের জন্য ৯টি উপজেলায় শিশুকল্যাণ ট্র্যাস্টের ১টি সহ মোট ১০৫৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।

উপজেলা ভিত্তিক প্রাথমিক শিক্ষার তথ্য চিত্র

প্রত্যেক উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষার প্রশাসনিক বিষয়াবলি দেখার জন্য রয়েছে একটি উপজেলা শিক্ষা অফিস যার প্রধান হিসেবে রয়েছেন  উপজেলা শিক্ষা অফিসার পদধারী ৯ম গ্রেডের একজন কর্মকর্তা। উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম সূচারুরূপে বাস্তবায়ন নিশ্চিত করার জন্য প্রতিটি উপজেলাকে কয়েকটি ক্লাস্টারে ভাগ করে নেয়া হয়। প্রতিটি ক্লাস্টারের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম তদারকী করার জন্য একজন ১০ম গ্রেডের সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার দায়িত্ব প্রাপ্ত থাকেন।

এক নজরে হবিগঞ্জ জেলার ৯টি উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষার তথ্য চিত্র:-

ক্র নং উপজেলা ইউনিয়ন পৌরসভা ক্লাস্টার সরকারি

প্রাথমিক বিদ্যালয়

কর্মরত উপজেলা শিক্ষা অফিসার সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের পদ কর্মরত সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের পদ মন্তব্য
হবিগঞ্জ সদর ১১৫
শায়েস্তাগঞ্জ ২৯
নবীগঞ্জ ১৩ ১০ ১৮২
লাখাই ৭২
বানিয়াচং ১৫ 0 ১৬৭
আজমিরীগঞ্জ ৬৫
মাধবপুর ১১ ১৪৯
চুনারুঘাট ১০ ১৭১
বাহুবল 0 ১০৩
মোট ৭৮ ৪৭ ১০৫৩ ৪৮ ১৮

 

জেলার মোট ১০৫৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিটিতে ১জন করে প্রধান শিক্ষক এবং ৫৮৩২টি সহকারী শিক্ষকদের  পদ  রয়েছে।

২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি-৪ (সকলের জন্য অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সমতাভিত্তিক গুনগত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ এবং জীবনব্যাপী শিক্ষা লাভের সুযোগ সৃষ্টি) বাস্তবায়নে জেলার প্রাথমিক শিক্ষার একাডেমিক (প্রশিক্ষণ) কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট(পিটিআই),হবিগঞ্জ এবং অধীনস্ত ৯টি উপজেলা রিসোর্স সেন্টার(ইউআরসি) নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শিক্ষকদের পেশার প্রতি ইতিবাচক মনোভাব তৈরিতে পিটিআই গুতুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের ১৮ মাস ব্যাপী বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ ডিপ্লোমা ইন প্রাইমারি এডুকেশন(ডিপিএড)প্রশিক্ষণ পিটিআইতে আবাসিকভাবে সম্পাদিত হয়ে থাকে। এছাড়া শিক্ষকদের আধুনিক প্রযুক্তি সহায়ক শিক্ষা দানের উপযুক্ত করে গড়ে তোলার জন্য ১২ দিন ব্যাপি আইসিটি ইন এডুকেশন নামক প্রশিক্ষণ পিটিআইতে আবাসিকভাবে সম্পাদিত হয়ে থাকে। তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ পিটিআই ইন্সট্রাক্টরগণ এ প্রশিক্ষণ পরিচালনা করে থাকেন। তাছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্তকর্তাদের বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক ও সমসাময়িক স্বল্প মেয়াদী মাস্টার ট্রেইনার প্রশিক্ষণ পিটিআইতে সম্পাদিত হয়ে থাকে।

পিটিআই, হবিগঞ্জ এর আওতাধীন ৯টি উপজেলা রিসোর্স সেন্টার(ইউআরসি) নিজ নিজ উপজেলার শিক্ষকদের বিষয়ভিত্তিক ও চাহিদাভিত্তিক প্রশিক্ষণ পরিচালনা করে থাকেন।

সরকার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত কল্পে হবিগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা পরিবার বদ্ধপরিকর।

 

তথ্য সূত্র: ১। জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০

২। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস,হবিগঞ্জ

৩। ই-মনিটরিং স্কুল সিস্টেম

 

সামাজিক মিডিয়ায় শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর
Developer By Zorex Zira

Designed by: Sylhet Host BD