1. sm.khakon@gmail.com : bkantho :
নৌপরিবহন মন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আইএমও-তে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সবুজ সামুদ্রিক শিল্প উদ্যোগের  সমর্থন চেয়েছেন - বাংলা কণ্ঠ নিউজ
February 6, 2023, 6:32 am

নৌপরিবহন মন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আইএমও-তে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সবুজ সামুদ্রিক শিল্প উদ্যোগের  সমর্থন চেয়েছেন

মতিয়ার চৌধুরী, লন্ডন থেকে
নৌপরিবহন মন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আইএমও-তে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সবুজ সামুদ্রিক শিল্প উদ্যোগের  সমর্থন চেয়েছেন

নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশে একটি সবুজ মেরিটাইম শিল্পের দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগের প্রতি তাদের সমর্থন জোরদার করার জন্য আন্তর্জাতিক মেরিটাইম অর্গানাইজেশন (আইএমও) এবং প্রধান মেরিটাইম অংশীদারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। “একটি সবুজ সামুদ্রিক শিল্পে রূপান্তর করার জন্য বাংলাদেশ ল্যান্ডলকড ডেভেলপিং কান্ট্রি (এলএলডিসি) এবং ছোট দ্বীপ উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলি (এসআইডিএস) আইএমও এবং প্রধান মেরিটাইম অংশীদারদের আর্থিক, প্রযুক্তিগত এবং জ্ঞান সহায়তা প্রয়োজন”।

বাংলাদেশ হাইকমিশন  লন্ডন আয়োজিত  ‘বাংলাদেশ মেরিটাইম ইন্ডাস্ট্রির ৫০ বছর: দ্য রোড টু ডিকার্বনাইজেশন’ শীর্ষক ইভেন্ট, লন্ডনের আইএমও সদর দফতরে অনুষ্ঠিত ১২৮তম আইএমও কাউন্সিল চলাকালীন বাংলাদেশের পক্ষে প্রতিমন্ত্রী বলেন।  ২০২৩ সালের মধ্যে হংকং কনভেনশন অনুসমর্থন করার জন্য বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করে তিনি বলেন, “বাংলাদেশ বর্তমানে নিরাপদ এবং পরিবেশগতভাবে দায়িত্বশীল জাহাজ পুনর্ব্যবহার করার জন্য তার সেইফ এন্ড এনভারমেন্টালী  সাউন্ড শিফ রিসাইবকেলিং ইন বাংলাদেশ  প্রকল্প ফেজ-৩ এ আইএমও-এর সাথে অংশীদারিত্ব করছে; এবং ইতিমধ্যে বিশ্বের নেতৃস্থানীয় জাহাজ পুনর্ব্যবহারকারী দেশ হিসাবে ইস্পাত হ্রাস, পুনঃব্যবহার এবং পুনর্ব্যবহার করে বৈশ্বিক ডিকার্বনাইজেশনে যথেষ্ট অবদান রেখেছে।”

যুক্তরাজ্যে  নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এবং আইএমও-তে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি সাইদা মুনা তাসনিম তার উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জলবায়ু-সমর্থক নেতৃত্বে সরকার দেশের নৌপরিবহনের ডিকার্বনাইজেশনের জন্য একটি দৃষ্টিভঙ্গি এবং একটি মিশন নির্ধারণ করেছে। প্রাথমিক আইএমও জিএইচজি  হ্রাস কৌশল অনুসারে ২০৫০ সালের মধ্যে খাত। আইএমও-তে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি একটি ইউনাইটেড ন্যাশন কনফারেন্স ট্রেইড এন্ড ডেভল্যপমেন্ট  রিপোর্ট সহ কিছু গবেষণার উদ্ধৃতি দিয়েছেন যা প্রমাণ দেখিয়েছে যে বাংলাদেশ একা একটি প্রধান জাহাজ পুনর্ব্যবহারকারী দেশ হিসাবে, প্রতি মেট্রিক টন ইস্পাত পুনর্ব্যবহৃত প্রায় ২০০০ কেজি সিও-২ হ্রাস করে, যা সামুদ্রিক শিল্পে কার্বনাইজেশনে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখে। তিনি দেশের সরকারি ও বেসরকারি শিপিং সেক্টরে সবুজায়নের জন্য নতুন প্রযুক্তি প্রবর্তনের জন্য বাংলাদেশের মেরিটাইম সেক্টরের জন্য পাইলট প্রকল্প চালু করার জন্য আইএমও-কে আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে, আইএমও-এর মহাসচিব কিট্যাক লিম বাংলাদেশের জাহাজ পুনর্ব্যবহার, পরিবেশগত ও নিরাপত্তার মান উন্নত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের প্রশংসা করেন। তিনি বাংলাদেশের একটি সবুজ শিপিং শিল্পে রূপান্তরের জন্য আইএমও-এর ক্রমাগত সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে নৌ-পরিবহন, বন্দর ও নৌপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং আইএমও কাউন্সিলে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের প্রধান ড. সঞ্জীব রঞ্জন বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে নৌ-যোগাযোগ পুরোপুরি পুনঃস্থাপনের আহ্বান জানান, যা হবে একটি তাৎপর্যপূর্ণ। ডিকার্বনাইজেশনের দিকে এগিয়ে যাবে। এই উদ্যোগের  বিস্তর তুলে ধরতে গিয়ে  তিনি বলেন দুই বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতিবেশীর মধ্যে সংযোগ পুনঃস্থাপনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে দুর্দান্ত অগ্রগতি করেছেন তার জন্য তিনি তার প্রশংসা করেন।

বাংলাদেশের নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমোডর মোঃ নিজামুল হক একটি সবুজ শিপিং শিল্প অর্জনে বাংলাদেশের রোডম্যাপের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। লন্ডনে আন্তর্জাতিক সংস্থায় ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত ও স্থায়ী প্রতিনিধি মার্কো ফারানি, আইএমও কোহেই আইওয়াকিতে জাপানের বিকল্প স্থায়ী প্রতিনিধি, যুক্তরাজ্যে শ্রীলঙ্কার ডেপুটি হাইকমিশনার সামান্থা পাথিরানা এবং আইএমওর ডেপুটি ডিরেক্টর তিয়ান বিং হুয়াং প্যানেল আলোচনায় অংশ নেন। অনুষ্ঠানের পর বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল দ্বারা মধ্যাহ্নভোজের সংবর্ধনার আয়োজন করা হয় যেখানে প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আইএমএসও -এর মহাপরিচালক মঈন আহমেদকে ২০২৩ সালের আইএমও  নির্বাচনে মহাসচিব পদে বাংলাদেশের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন।

সামাজিক মিডিয়ায় শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর
Developer By Zorex Zira

Designed by: Sylhet Host BD