1. sm.khakon@gmail.com : bkantho :
ইউনিয়ন ঠিক তো হবিগঞ্জ জেলা ঠিক ॥ জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানা - বাংলা কণ্ঠ নিউজ
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন

ইউনিয়ন ঠিক তো হবিগঞ্জ জেলা ঠিক ॥ জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানা

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
  • বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০২৪
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে
ইউনিয়ন ঠিক তো হবিগঞ্জ জেলা ঠিক ॥ জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানা
ইউনিয়ন ঠিক তো হবিগঞ্জ জেলা ঠিক ॥ জেলা প্রশাসক জিলুফা সুলতানা

হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোছাঃ জিলুফা সুলতানা বলেছেন, ইউনিয়ন ঠিক তো হবিগঞ্জ জেলা ঠিক। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা কোন পক্ষপাতিত্ব না করে নিরপেক্ষ ভাবে কাজ করলে দাঙ্গা থেকে শুরু করে বেশীরভাগ অপরাধ এমনিতেই কমে যাবে।

তুচ্ছ বিষয় নিয়ে গ্রামবাসী দাঙ্গায় জড়িয়ে পড়ে দেশীয় অস্ত্র টেটা ফিকল ও বল্লম নিয়ে। ফলে প্রতিনিয়ত অনেক তাজা প্রাণ অকালে মৃত্যুর কুলে ঢলে পড়ার পাশাপাশি পঙ্গুত্ববরণ করছেন অনেকেই। বিশেষ করে জনপ্রতিনিধিরা একবার চিন্তা করুনতো সমাজকে কি দিলেন।

অপরাধের বিরুদ্ধে জেগে উঠুন প্রশাসন আপনাদের সকল ভাল কাজে সহযোগিতা করবে। দীর্ঘ দিনের সমস্যা সমাধানের পূর্বে পরিকল্পনা করুন। ইউনিয়নের প্রতিটি লোককে পরিবারের সদস্য মনে করে কাজ করুন দেখবেন এমনিতেই সব কাজ সহজ হয়ে যাবে।

প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষকদের উদ্দ্যেশ্যে তিনি বলেছেন, ডিজিটাল যুগে ডিজিটাল কন্টেন্ট বেশী ব্যবহার করুন। শিশুদেরকে বিদ্যালয় মুখি করতে পড়াশোনায় পাশাপাশি নিয়মিত খেলাধুলায় অংশ নিতে দিন। প্রয়োজনে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি ও অভিভাবকদের নিয়ে অভিভাবক সমাবেশ করুন। আর এসব সমাবেশে অভিভাবকদের সচেতনতার লক্ষ্যে গ্রাম্য দাঙ্গাসহ সকল প্রকার অপরাধ প্রবণতার সু-ফল ও কু-ফল সম্পর্কে আলোচনা করুন।

উপজেলার সর্বস্তরের যোগযোগ ব্যবস্থা ভাল করতে তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নির্দেশনা প্রদান করেছেন। এছাড়া সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে দ্রুত হাট-বাজার গুলোর ব্যবসায়ী নেতাদের সাথে সমন্বয় করে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার ও তাগিদ দিয়েছেন।

প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছেন ঐতিহাসিক কমলা রাণীর সাগরদীঘি, বিথঙ্গল আখড়া, লক্ষীবাউর জলাবনসহ বানিয়াচংয়ের উল্লেখ যোগ্য স্থান গুলোকে পর্যটন কেন্দ্র করে গড়ে তুলতে বেশী করে হাই লাইট করতে হবেনা। এগুলো এমনিতেই পর্যটন কেন্দ্র হয়ে আছে। শুধুমাত্র অবকাঠামোগত কিছু উন্নয়ন করলেই হয়ে যাবে।

দ্রুত সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সাথে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার আশ্বাস প্রদান করেছেন তিনি। এছাড়া ধান ও মৎস্য ভান্ডার খ্যাত বানিয়াচংয়ের হাওড় রক্ষায় নাব্যতা হারানো শাখা কুশিয়ারা ও শুটকি নদী খনন করার ও আশ্বাস প্রদান করেছেন তিনি।

জেলা প্রশাসক সোনার বাংলায় সোনা ফলাতে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন । বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সকাল ১১ ঘটিকায় বানিয়াচং উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে বানিয়াচং উপজেলায় কর্মরত কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক. সুশিল সামজ, নাগরিক সমাজ ও শিক্ষকদের সাথে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান কালে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ সাইফুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সামিউর রহমান, বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আমির হোসেন মাষ্টার,জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মুফতি মাওলানা আতাউর রহমান,

বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি এস এম খোকন, ইউপি চেয়ারম্যান, আরফান উদ্দিন, মঞ্জু কুমার দাশ, এরশাদ আলী, জয় কুমার দাশ, আহাদ মিয়া, শেখ সামছুল হক, অধ্যক্ষ স্বপন কুমার দাশ, স্কাউট বানিয়াচং উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক মোঃ আবু তাহের, কমিউনিটি নেতা কাজল চ্যাটার্জি, শিক্ষক সাহেনা খানম, সাধনা রাণী সুত্রধর, নুপুর দেব প্রমুখ।

এছাড়া বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত ইউপি চেয়ারম্যান, কর্মকর্তা শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে সুরভী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন, প্রধান মন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পে সচেতনতামূলক সম্প্রীতি সমাবেশে অংশগ্রহন, ইউএনও অফিস, এসিলেন্ড অফিস ও বানিয়াচং ৩নং উত্তর পূর্ব ইউনিয়ন পরিষদ পরিদর্শন করেছেন।

সামাজিক মিডিয়ায় শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর
Developer By Zorex Zira

Designed by: Sylhet Host BD