জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের অর্থ আত্মসাতের দায়ে বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের রায় ঘোষণার পর সংবাদ সম্মেলন করে কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, “খালেদা জিয়াকে সরকার অন্যায়ভাবে কারাগারে পাঠিয়েছে। এর প্রতিবাদে আগামীকাল (শুক্রবার) জুমার নামাজের পর সারাদেশে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে। কিন্তু সরকার যেন কোনো ধরনের উস্কানি না দেয়।

এছাড়া শনিবার প্রতিবাদ কর্মসূচিও রেখেছে বিএনপি। তবে এ বিষয়ে পরে জানানো হবে বলে ফখরুল জানান।

বুধবার সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়া নায়বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয় জানিয়ে নেতাকর্মীদের ‘শান্তিপূর্ণ ও নিয়মতান্ত্রিক’ আন্দোলনের নির্দেশনা দিয়েছিলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, “বুধবার সংবাদ সম্মেলনের পর নেত্রী আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন কোনো অবস্থায় যেন সহিংস কোনো কর্মসূচি না দেই। আমরা শান্তি চাই এটাই নেত্রীর চাওয়া। নেত্রীর ইচ্ছানুযায়ী আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করব।”

বৃহস্পতিবার পুরান বকশীবাজারে আদালতে খালেদার উপস্থিতিতে ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আখতারুজ্জামান এই রায় ঘোষণা করেন।

মামলার ছয় আসামির মধ্যে খালেদা জিয়ার বড় ছেলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং মাগুরার সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, সাবেক মুখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের হয়েছে দশ বছর করে কারাদণ্ড।

সেই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার করে জরিমানা করেছেন বিচারক।

রায় ঘোষণার পর খালেদাকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

print

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here