জনসন অ্যান্ড জনসনকে ৪১৭ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ

লস এঞ্জেলসের সর্বোচ্চ আদালতের জুরিরা সোমবার ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা ইভা ইচেভেরিয়ার পক্ষে রায় দেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ।

ট্যালকম পাউডার ব্যবহারে ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকতে পারে গ্রাহকদের এ বিষয়ক সতর্কতা জানাতে ব্যর্থ হওয়ায় জনসন অ্যান্ড জনসনের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ এ ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

“এ বিষয়ে জুরিদের রায়ে আমরা কৃতজ্ঞ, এর মাধ্যমে আদালতে ইভা তার দাবি প্রতিষ্ঠায় সক্ষম হলেন,” এক বিবৃতিতে বলেন ইভার আইনজীবি মার্ক রবিনসন।

রায়ে ইভাকে ক্ষতিপূরণ বাবদ ৭ কোটি ডলার এবং জনসনের কৃতকর্মের শাস্তি হিসেবে আরও ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ডলার দিতে বলা হয়েছে বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

এ রায়কে জে অ্যান্ড জে’র জন্য বিপদসঙ্কেত হিসেবে দেখা হচ্ছে। বহুজাতিক এ কোম্পানির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে এ ধরণের অন্তত ৪ হাজার ৮শ’ অভিযোগ উঠেছে, যার কয়েকটিতে এর আগেই মিজৌরির জুরিরা ৩০ কোটি ডলারের বেশি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

ক্যালিফোর্নিয়ায় জনসনের ট্যালকম পাউডার নিয়ে হওয়া শতাধিক অভিযোগের মধ্যে ইভার মামলার বিচারকাজই প্রথম শেষ হলো।

৬৩ বছর বয়সী এ নারীর দাবি, দশকের পর দশক জনসনের পণ্য ব্যবহার করায় তার ডিম্বাশয়ে ক্যান্সার বিস্তৃতি লাভ করেছে।

আদালতে যুক্তিতর্কে তার আইনজীবীরা বলেন, জননাঙ্গে ট্যালকম পাউডার ব্যবহারে ডিম্বাশয়ে ক্যান্সার ছড়ানোর আশঙ্কা আছে এমনটা জানার পরও জে অ্যান্ড জে তাদের পণ্য ব্যবহারে নারীদের উৎসাহিত করেছে।

অন্যদিকে জনসনের আইনজীবিরা বলেন, বিভিন্ন সংস্থা ও গবেষণায় ট্যালকম পণ্য যে ক্যান্সার সৃষ্টির জন্য দায়ী নয় তা প্রমাণিত হয়েছে।

“আমরা অবশ্যই আজকের এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবো। আমরা বিজ্ঞানের মাধ্যমে পরিচালিত হই, যা জনসনের বেবি পাউডার ব্যবহারের নিরাপত্তাকে সমর্থন করে,” রায়ের পর দেওয়া বিবৃতিতে জানায় জে অ্যান্ড জে।

এর আগে মিজৌরিতে এরকম ৫টি মামলায় পরাজিত হয় জনসন, যাতে ক্ষতিপূরণ বাবদ ৩০ কোটি ৭ ০ লাখ ডলার দেওয়ার নির্দেশ পেয়েছে তারা।

সোমবারের আগে এক মামলায় জে এন্ড জে-র বিরুদ্ধে হওয়া সর্বোচ্চ ক্ষতিপূরণের রায় ছিল ১১ কোটি ডলারের, জানিয়েছে বিবিসি।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *