স্পেনের ইউনিভার্সিদাদ কার্লোস ৩ দে মাদ্রিদ-এর গবেষকরা ‘পারভ্যাসিভএসইউভি প্রজেক্ট’ নামের এই প্রকল্প পরিচালনা করছেন। এই প্রকল্পে কোনো টেলিভশন চ্যানেলের সব সাবটাইটেল সংগ্রহ করে একটি কেন্দ্রীয় সার্ভারে পাঠানো হয়। সেখান থেকে এগুলো স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটে পাঠানো হয়। সেখান থেকে এই সাবটাইটেলগুলো ব্রেইল লাইনে রূপান্তর করে একটি অ্যাপের মাধ্যমে শ্রবণ ও দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের কাছে পাঠানো হয়। এ ক্ষেত্রে যথাযথ সমন্বয়ে টিভি থেকে সরাসরি নেওয়া সাবটাইটেইলগুলোর গতিও নিয়ন্ত্রণ করা যাবে, বলা হয়েছে আইএএনএস-এর প্রতিবেদনে।

স্প্যানিশ ব্রডব্যান্ড ও টেলিযোগাযোগ সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান টেলিফোনিকা এই প্রকল্পে অর্থায়ন করেছে।

এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটির সাস্টেইনএবল ইনোভেশন পরিচালক আরানচা দিয়াজ-লিয়াদো বলেন, “টেলিফোনিকায় আমরা আরও প্রবেশযোগ্য একটি প্রতিষ্ঠান হতে চেষ্টা করছি আর এর এর মাধ্যমে সবার জন্য সমান সুযোগ রাখতে অবদান রাখছি। যদিও এখনও আমাদের আরও অনেক দূর যাওয়া বাকি, নতুন এসব প্রযুক্তি আর ডিজিটাল বিপ্লব আমাদের সেখানে নিয়ে যেতে সহায়তার সর্বশ্রেষ্ঠ মাধ্যম।”

এই প্রযুক্তি নিয়ে চালানো পরীক্ষা সফল হয়েছে আর ইতোমধ্যে স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে ডিজিটাল টেরেসট্রিয়াল টেলিভিশন চ্যানেলে এটি প্রয়োগ করা হয়েছে।

বিনামূল্যে এই সেবা দিচ্ছে গবেষকদলটি।

print

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here